রবিবার, জুলাই ২১, ২০২৪
শিরোনামঃ
||দু’টি মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে যুবক নিহত, আহত ৩||শৈলকুপায় দাদার লাশ দেখে ফেরার পথে ট্রাকের ধাকায় নাতি ছেলে নিহত||শৈলকুপায় কোটাবিরোধী আন্দোলনে মহাসড়ক অবরোধ, সংসদ সদস্যের গাড়ি ও আওয়ামী লীগ নেতার বাড়ী ভাংচুর||নড়াইল শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র পৌর মেয়র আনজুমান আরা সভাপতি নির্বাচিত||নড়াইলে মধুমতি নদী থেকে গলিত মরদেহ উদ্ধার||নড়াইলে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা সহায়তা প্রদান||মৌলভীবাজারে ইয়াবা, গাঁজা, চোলাই মদসহ আটক ৪||নড়াইল সরকারি মহিলা কলেজের ২০২৪-২০২৫ বর্ষের জন্য নবগঠিত শিক্ষক পরিষদের অভিষেক ও ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত||নড়াইলের স্মার্ট লোহাগড়া গড়ার লক্ষ্যে সৌন্দর্যবর্ধন কর্মসুচির উদ্বোধন||শ্রীমঙ্গলে নতুন এসি ল্যাণ্ড সালাউদ্দিন বিশ্বাসের যোগদান||শ্রীমঙ্গলে ‘কৃষক জিএপি সার্টিফিকেশন’ শীর্ষক দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ||নড়াইলে মাদক দ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার বিরোধী আন্তজার্তিক দিবস পালিত||শ্রীমঙ্গলে বিদেশি মদসহ এক মাদক কারবারি গ্রেফতার||ঢাকার বংশালে হরিজন পল্লীর বাসিন্দাদের কাউন্সিলর আউয়াল বাহিনীর বর্বর হামলা বন্ধের দাবিতে নড়াইলে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত||নড়াইলে চন্ডিবরপুর ইউনিয়ন পরিষদ উপ-নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে চার প্রার্থীর প্রতীক বরাদ্দ সম্পন্ন
Homeতথ্য-প্রযুক্তিভারত কর্তৃক সম্প্রতি চাঁদে প্রেরিত চন্দ্রযানের নাম কি

ভারত কর্তৃক সম্প্রতি চাঁদে প্রেরিত চন্দ্রযানের নাম কি

নিজস্ব প্রতিবেদক:

ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (ইসরো) ২০২৩ সালে চাঁদে একটি নতুন মিশন প্রেরণ করেছে, যার নাম “চন্দ্রযান-৩”। এটি চন্দ্রযান সিরিজের তৃতীয় মিশন, এবং এর প্রধান উদ্দেশ্য চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে সফলভাবে অবতরণ করা এবং সেখানে বৈজ্ঞানিক গবেষণা পরিচালনা করা।

চন্দ্রযান-৩ এর মিশন ও পরিকল্পনা

চন্দ্রযান-৩ মিশনের প্রধান উপাদান হলো একটি ল্যান্ডার ও একটি রোভার। এই মিশনে কোনো অরবিটার অন্তর্ভুক্ত ছিল না, কারণ চন্দ্রযান-২ মিশনের অরবিটার এখনও কার্যকর অবস্থায় চাঁদের কক্ষপথে কাজ করছে। চন্দ্রযান-৩ মিশনের প্রধান লক্ষ্য ছিল চন্দ্রযান-২ এর অরবিটারকে সহযোগিতা করা এবং চাঁদের পৃষ্ঠে সফলভাবে অবতরণ করা।

প্রযুক্তিগত দিক

চন্দ্রযান-৩ ল্যান্ডারটির নাম “বিক্রম” এবং রোভারটির নাম “প্রজ্ঞান”। বিক্রম ল্যান্ডারটি চাঁদের পৃষ্ঠে নরম অবতরণ করতে সক্ষম, এবং এটি বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক সরঞ্জাম বহন করে যা চাঁদের মাটি এবং অন্যান্য বৈশিষ্ট্য পরীক্ষা করতে ব্যবহৃত হয়। প্রজ্ঞান রোভারটি চাঁদের পৃষ্ঠে চলাচল করতে পারে এবং এটি চাঁদের মাটি এবং শিলার রাসায়নিক সংমিশ্রণ পরীক্ষা করতে সক্ষম।

বৈজ্ঞানিক উদ্দেশ্য

চন্দ্রযান-৩ মিশনের বৈজ্ঞানিক উদ্দেশ্যগুলির মধ্যে রয়েছে চাঁদের দক্ষিণ মেরু অঞ্চলের খনিজ সংস্থান ও রাসায়নিক সংমিশ্রণ পরীক্ষা, চাঁদের মাটির তাপীয় বৈশিষ্ট্য নির্ণয়, এবং চাঁদের ভূতাত্ত্বিক কার্যকলাপের তথ্য সংগ্রহ। চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে জল বরফের সম্ভাব্য উপস্থিতি সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করা মিশনের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য।

সাফল্য ও প্রভাব

চন্দ্রযান-৩ মিশনটি চাঁদের পৃষ্ঠে সফলভাবে অবতরণ করে, যা ভারতের মহাকাশ গবেষণায় একটি মাইলফলক হিসেবে গণ্য করা হয়। এই সফল অবতরণ ভারতের মহাকাশ কর্মসূচির সক্ষমতা এবং প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতার প্রমাণ বহন করে। চাঁদে সফল অবতরণের মাধ্যমে ভারত চতুর্থ দেশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, এবং চীনের সাথে সামিল হলো, যারা পূর্বে চাঁদে সফলভাবে অবতরণ করেছে।

ভবিষ্যত পরিকল্পনা

চন্দ্রযান-৩ মিশনের সফলতা ইসরোকে আরও বৃহত্তর ও জটিল মহাকাশ মিশন পরিচালনা করার জন্য অনুপ্রেরণা যোগাবে। ভবিষ্যতে ইসরো মঙ্গল এবং অন্যান্য গ্রহে মিশন প্রেরণ করার পরিকল্পনা করছে, যা মহাকাশ গবেষণায় ভারতের অবস্থানকে আরও শক্তিশালী করবে।

পরিশেষে 

চন্দ্রযান-৩ মিশনটি ভারতীয় মহাকাশ গবেষণার জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় এবং এর সফলতা ইসরোকে আন্তর্জাতিক মহাকাশ গবেষণায় উচ্চতর স্থানে নিয়ে যাবে। চাঁদে প্রেরিত এই মিশনটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ক্ষেত্রে ভারতের অগ্রগতি এবং মহাকাশ গবেষণার ক্ষেত্রে নতুন সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচন করেছে।

Stay Connected
16,985FansLike
2,458FollowersFollow
61,453SubscribersSubscribe
সর্বশেষ খবর
আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here